This entry is part 3 of 8 in the series কিছু সংলাপ কিছু প্রলাপ

 

 

 

পর্ব-৩ ।


 

সরস্বতী পুজোর রেশ তখনও কাটে নি……রাংতা আর মহুল বেড়িয়েছে …মাঝপথে টিপ টিপ বৃষ্টি…মাথা বাঁচাতে দুজনেই বিড়লা পিচে গাছের নিচে…… এমন এক পরিবেশে তাদের বন্ধুত্বের মাঝে শোনা যায় অভিযোগের সুর………

 

-কি ব্যাপার বলতো মহুল?
-কেন কি হয়েছে?
-কোথায় হারিয়ে গেছিস বৃষ্টির টুপটাপ শব্দে? দেখ মহুল , গাছের পাতার ডগায় জলের ফোঁটাগুলো কেমন চিকচিক করছে!
-আর ওই দেখ ভিজে রাস্তায় গাড়ির হেড লাইটের আলো পড়ে কেমন ঠিকরে পড়ছে চারপাশে…
-কিন্তু আরও কি যেন দেখছিস তুই? কি এত দেখছিস?
দেখছি তো। দেখার কি শেষ আছে রাংতা?
-এবার কি দেখলি বল না?
-শ’য়ে শ’য়ে প্রজাপতি…রং বেরঙের।
-প্রজাপতি? কোথায়?
-ওইতো দেখ না জোড়ায় জোড়ায় ,ঘুরে বেড়াচ্ছে এই বৃষ্টিতেও।
-জোড়া প্রজাপতি? তার চেয়ে বল না ,শুধুই রানী মৌমাছি দেখছিস?
-যাঃ আমি কি খালি মেয়েই দেখি নাকি?
-বাহ…এইতো সরস্বতী পুজোর দিন বললি,তুই নাকি প্যান্ডেলে প্যান্ডেলে লাল নীল হলুদ শাড়িতে ঠাকুরের চিন্ময়ী রূপ দেখে বেড়াচ্ছিলি!!!
-আমি অন্য মেয়েদের দিকে তাকালে তোর বুঝি হিংসে হয়
-হ্যাঁ হয় তো…আমি কেমন সেজেছি তাকিয়ে দেখিস কখনও?
-হুম দেখি তো।
-কই আমায় কোনোদিন বলেছিস দেখতে কেমন লাগে ?
-তোর ওই মনভোলানো নকলরূপে আমার তোকে অচেনা লাগে রাংতা।
-অচেনা? মানেটা কি?
-মানে……রাংতার চাকচিক্য তার কথায়, চোখে, তার মনের রঙে। শরীরের ঐ মেকী রঙ আমার মনে ধরে না।
-এসব তোর শব্দের কারসাজী…কথার নেশা।
-মহুলের কথায় নেশা তো হবেই?
-জানি তো, আর তোর ঐ মিষ্টি কথার নেশাতেই যে আমি মরেছি।
-আহ থাক না রাংতা, ভালবাসার মধ্যে আবার মৃত্যুর কথা কেন?
-“মরন রে তুঁহু মম শ্যাম সমান”……এ মরন যে সুখের , মহুল।
-এমন করে আমায় আঁকড়ে ধরিস না রাংতা…আমার বড়ো ভয় করে, দমবন্ধ হয়ে আসে।
-আচ্ছা যাঃ, তোকে ছেড়ে দিলাম…তুই যে বোনের পাখি, তোকে ধরে রাখা যায় কি?
-বাহ রে, আমি কি তাই বললাম? নাই বা রাখলি খাঁচায়…নাই বা মানালি পোষ! তবু দেখবি , পাখি ঠিক থাকবে তোর কাছে। শুধু তার উড়ানে বাধ সাধিস না।
-বেশ, বুঝলাম।
-কি বুঝলি শুনি?
-এই যে ,তুই না থেকেও আছিস , আবার থেকেও নেই।
-বেশ বলেছিস… কি করব…আমি তো এরকম ই।
-কেন তুই এরকম মহুল? আমি তো এরকম নই, তাই আমার মাঝে মাঝে কষ্ট হয়…ভারি একলা লাগে ।
-জানি তো ,তুই যে একেবারে অন্যরকম রাংতা। আর তাই তো, এবারে আমিও ….
-‘আমিও’ কি বল?
-কিছু না। গল্প হলেও সত্যি।

………………………………………………………………………………………………………………………ক্রমশ