দিন দিন কেমন স্থবির হয়ে যাচ্ছে সব
বিবেক বুদ্ধিগুলোতে জঙ ধরে যাচ্ছে কি?
মাথার মধ্যে এক অসহ্য যন্ত্রণা বুঝিয়ে দিচ্ছে ,
শব্দেরা বিক্ষোভে ফেটে পড়তে চাইছে
অনুভূতির প্রলম্বিত যানজটে….
তীব্র আস্ফালনে জেহাদ জানাচ্ছে মন ও আত্মা !
ভাবনার সহজাত নদীপথ হারাচ্ছে তার নাব্যতা,
ঘনীভূত হচ্ছে বেয়াড়া পলিস্তর।
তবু তোমার দিকে অপলকে চাইলে
মনের তটে আজও খেলে বিদ্যুৎ…
সহ্যশক্তিরা মানে বশ্যতা,
কুন্ডলিনী জেগে ওঠে শরীরের ঋদ্ধ গুহায়!
মনিপুরা চক্রে বইতে থাকে শান্ত স্রোতস্বিনী।
আমার সমস্ত দীনতার গ্লানি সমাহিত হয় তোমার মাঝে!
বদ্ধ পাঁজরের খাঁচার সামনে দাঁড়িয়ে
কে যেন বলে ওঠে ‘ শান্তি শান্তি শান্তি ওম্’।
আর আমি অস্ফুটে বলি,
তুমি আমার সর্বস্ব নাও গোঁসাই
শুধু ‘আমার আমিকে’ আরও একবার
ফিরিয়ে দাও ঠিক আগের মত!!!!

  

আজ এখনও আলোর বিপরীতে
হেঁটে চলেছি অভিন্ন এক মায়া!
প্রশস্ত পথে দাঁড়িয়ে মুখোমুখি ….
আমি আর আমার কালো ছায়া!
নিদারুণ সত্যিটা এই যে,
রাত বাড়ছে ,বয়স বাড়ছে
আর দিনকে দিন
বাড়ছে আমার ছায়া!
মাঝে মধ্যেই ভাবনা আসে
কেমন হত ,আমি ডাইনে চললে
তুমি চলতে বাঁয়া !
আবর্জনায় গুমরে মরে
যে ভালোবাসার কায়া ….
আলোটুকু হারিয়ে ফেললেই
অন্ধকারে মিশে যাবে ছায়া।
তাই এবার আমার মায়া বাড়ছে,
সে এক কায়াহীনতার মায়া!
তবু আলোর মাঝে হাঁতরাই না ,
আগের মত অন্ধমনের ছায়া।
__________oimookh/@indrila

  

অকাল বোধনে জ্যোত্স্না ছড়িয়েছিল যে সুসজ্জিত চাঁদ,
বিজয়া দশমীর শেষরাতে তার সমস্ত রঙ যেন,
গলে গলে পড়েছে ধরিত্রীর বুকে ।
একে একে ছেড়ে গেছে সবাই….
শুধু সঙ্গ ছাড়েনি ঐ নাছোড়বান্দা দীর্ঘশ্বাস !
গত ক’দিনের রঙরূপের জৌলুস যদিও গেছে মুছে,
তবুও ঠোঁটের কোণে ঠিক টাঙিয়ে রেখেছে ম্লান হাসিটা।
কিন্তু বটের ঝুরির ফাঁকে চোখ রাখলে বুঝতে,
নিজেকে বিলোতে বিলোতে,
জ্যোত্স্না বিছোতে বিছোতে
ক্ষয়ে যাওয়াটাই অভ্যেস হয়ে গেছে বুঝি
ঐ একরত্তি চাঁদের ….
অভ্যস্ত হয়েছে সে আরও অনেক কিছুতে…
ফুলে কাঁটায়, ভুলে মনস্তাপে!
জীবনে-যুদ্ধে , প্রেমে-অপ্রেমে!
শুধু নিঝুম রাতে দীঘির জলে পূর্ণ অবয়বে…
আজও ঘাটের সিঁড়ি শিউরে ওঠে ছলাৎ ছল!!!
বিসর্জনের সুর কানে এলে…
মনের পারা কেবলি চলকে বলে ‘জলকে চল’॥

__________oimookh/@indrila

  

 

কি ভেবেছিলে বলতো…..
নিষিদ্ধ মগজাস্ত্রে ঘায়েল করবে জনকন্ঠ?
তৃতীয় ব্যক্তি বলে সরিয়ে রাখবে আমাদের?
তবে বলি শোনো,
গোটা জীবনভর আমদের ছাত্রদশা!
তাই শহরের বুকে আজন্ম বইবে
স্পর্ধার বিকল্প স্রোত…..
প্রতিবাদী সশব্দ জনজোয়ার!
জেনে রাখো শব্দ পরম ব্রহ্ম
আবার শব্দ পরম অস্ত্রও
তাই ফের যদি বলো সশস্ত্র মিছিল
আপত্তি করব না সত্যি ,
শুধু কলরব বদলাবে ব্রহ্মাস্ত্রে
গর্জাবে রণহুংকার আবারও ….
আবারও মিলবে নবি থেকে কবি!
ভিসুভিয়াস জাগবে দেখো চেয়ে
শহর এবার যাবে তপ্ত লাভায় ছেয়ে॥

__________oimookh/@indrila

  

 

সময়ের কান ঘেঁষে
ছুঁড়েছো অদৃশ্য গুলি ,
আজ তাই আকাশে বাতাসে
অসময়ের পোড়া বারুদের গন্ধ ।
নীতিহীন তান্ডবে জ্বলছে সময়….
নৈরাজ্যের প্রলয়ে মেতেছে অর্বাচীনের দল,
সাধের শহরে তাই পুড়ছে মান,পুড়ছে মন।
বোধহীন নির্লজ্জ স্পর্ধায়
ঈশ্বরও বুঝি বা আজ নির্বাক!
প্রতিশোধের অবসর লেপেছে কালি ,
জানে না,অসহায় চিৎকার জমে জমে
আবারও হবে রণহুংকার…
আগামীর হাত ধরে আসে যদি বিপ্লব
রূপান্তরে, হবে দাহ্য বিষ্ফোরক!!!
তাই যুগান্তরে জেগে থাক আজন্ম প্রতিবাদ
গর্জে উঠুক কবিও তার কবিতায়…
ধিক্কার ! ধিক্কার ! আজও শুধু ধিক্কার!!!

__________oimookh/@indrila

  

সময় সময় ভাবি,
আর নয়, অনেক হয়েছে
এবার চোখ বুজে থাকব সারাজীবন।
চেয়ে দেখব না কি ঘটছে
বন্ধ চোখের ওইপারে….
তবু নিরক্ষর হাওয়া দেয় ডাক
চৌকিদারী সুরে সময় পারে হাঁক
কানে কানে বলে ,’জাগতে রহ’!!!!
রাতভর ঘুম আসে না চোখে
খোলা চোখে জাগে সময়
আর জাগি আমি …
অন্ধকারে ,ভয়ে ভয়ে ,একা
নিজের সাথে হয় দেখা ॥
__________oimookh/@indrila

  

তোমার জন্য সব পারি…
মিথ্যার সাগরে ডুব দিয়ে
কুড়িয়ে আনতে পারি
ইচ্ছার মুক্ত ফল!!!!
মন্থনে উঠে আসা বিষে
হতে পারি নীলকন্ঠ…
নির্বাসনে কাটাতে পারি
যুগ যুগান্ত!!!!
নিজেকে ছিন্নভিন্ন করে
জাগিয়ে তুলতে পারি
শিব তান্ডব….
তবু আমার নামে গড়ে উঠবে না
একান্ন পীঠ !!!!
আমার জন্য হবে না কোনও
দক্ষযজ্ঞ।
ঘটবে না ,
ধ্যান গম্ভীর শিবের রূদ্র রূপান্তর
অতঃকিম ,আমার জন্য থাক
শুধুই এই অলীক দুনিয়া…
এক নির্বাসিত আত্মখনন॥
______________oimookh/@indrila

  

তোমার দুচোখের মাঝে
স্থির আজ্ঞাচক্রে ,
আমার বহমান সময়
আজও আছে থমকে !
তোমার হাতের মুঠোয়
আমার আগামীর ইস্তেহার !
আমি খুব জানি গোঁসাই
তোমার চোখের আলতো ছোঁয়ায়
বদলাবে না আমার প্রাচীন ইতিহাস,
তবু তোমার কানে কানে
ভোর থেকে রাত অবধি বলে যাই,
শুুধু একবার চোখ মেলে চাও
আমার ভ্রূ পল্লবে রাখো চোখ
তোমার চোখের তারায়
হয়ত বা বদলে যেতে পারে
আমার অস্হির বর্তমান …
দুরাশার অন্তরীপ !!!
শুধু একবার ফিরে চাও তুমি…
কথা দিলাম নিশ্চিত জেনো
সোঁপে দেব আমি নিজেকে
শান্ত সমাহিত তোমার ধীমহী তেজে।
ক্ষমাশীল হও শুধু একবার ,
দেখো ,আমিও কেমন
রূদ্রাণী হতে জানি !!!

________oimookh/@indrila

  

অহংকারী চাঁদকে ,
একবার ছুঁয়ে দেখবে বলে,
নির্বোধ গ্রহ তার নিজের কক্ষ ছেড়ে,
পা বাড়িয়েছিল চাঁদের পথে !
মহাবিশ্বে হল এক ভীষণ তোলপাড়!
সবাই বলল ‘পৃথিবী যাবে রসাতলে’…
রাজদ্রোহে নির্বাসিত হল
সেই বামন গ্রহ।
আজও চাঁদ ওঠে আকাশে …
আর সেই গ্রহ ছুটে চলে তার আপন পথে!
আকাশে রাখে না চোখ!
ভয় পায়।
চোখ নামায়।
নীচে।
___________________________________________oimookh/@indrila

  

এ কোন মহাভারত ???
আমার মাঝে নিরন্তর ঝড় তোলে….
আজন্ম কুরুক্ষেত্রের যুদ্ধ চলে
মন ও মাথার লুপ্তপ্রায় কোষে!
প্রবৃত্তি আর নিবৃত্তির মাঝে
পাঞ্চজন্য বেজে ওঠে বারংবার!
আর আমি খুঁজে মরি
অনাসক্ত এক ধীর সন্তুষ্টি ॥
মন্ত্র তন্ত্র সাধন ভজনের ওপারে
যে নিঃসীম ঘন শূন্যতা,
তা-ই আমায় বাতলে দেয়
একনিষ্ঠ সমর্পণের পথ!!!
আর অন্তহীন আসক্তি শূন্য
আমার আমি শুধুই পেতে চায়
মনঃশূন্য স্থিতধী এক রেঁনেসা।
তবু কেন আমি হারিয়ে ফেলি
আমার নিষ্কাম যজ্ঞের বীজমন্ত্র!!

______________________________oimookh/@indrila

  
PAGE TOP
HTML Snippets Powered By : XYZScripts.com
Copy Protected by Chetans WP-Copyprotect.